Author Archives: Zoshim Uddin

ডোমেইন কি ? এবং হোস্টিং কি ??

ডোমেইন কি ? এবং হোস্টিং কি ??

ডোমেইন এবং হোস্টিং কি ?

ডোমেইন এবং হোস্টিং কি ? কি কাজে প্রয়োজন এবং কোথায় পাওয়া য়ায়।

আমাদের কোম্পানি প্রচার করার জন্য আমরা অনেক সময় এসএমএস দিয়ে থাকি। অনেকেই  আমাকে ফোন করে প্রশ্ন করেন ডোমেইন কি ? এবং হোস্টিং কি ???  যারা এধরনের প্রশ্ন করেন তাদের জন্য একটা পোস্ট দিলিখলাম। এখানে তুলে ধরা হয়েছে- ডোমেইন কি?  এবং হোস্টিং কি? এগুলো কি কাজে ব্যবহার হয় এবং কোথায় পাওয়া যায়।

১) ডোমেইন কি ?

ওয়েরসাইট করতে হলে আপনাকে আপনার ওয়েবসাইটের একটি নাম দিতে হবে। আর ওয়েবসাইটের সেই নামটাকেই বলা হয় ডোমেইন। যে নামের মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইট লোকজন খুজে পাবে সেটাই হলো ডোমেইন। যেমন আমরা ফেইসবুক কে খুজে পাই www.facebook.com দিয়ে। গুগল কে অমারা খুজেপাই www.google.com দিয়ে। যে নাম দিয়ে আপনার ওয়েবসাইট একজন লোক ভিজিট করবে সেটাই হলো আপনার ওয়েবসাইটের ডোমেইন । ডোমেইন শুধুমাত্র .com দিয়েই হবে সেরকম নয়, বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ধরনের ডোমেইন লোকজন ব্যবহার করে। ব্যবসা বা সাধারন ব্যবহারের জন্য সবাই .com ই ব্যবহার করে। তবে বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইটের জন্য লোকজন বিভিন্ন ডোমেইন এক্সটেনশন ব্যবহার করে যেমন: অরগানাইজেশনের জন্য .org, নেটওয়ার্কিং সাইটের জন্য .net (www.arkhanhost.com), ইনফরমেশন সাইটের জন্য .info ইত্যাদিসহ আরও অনেক ধরনের ডোমেইন ব্যবহার করা হয়।

উপরে যে ডোমেইনের কথা বলা হলো সেটা প্রিমিয়াম ডোমেইন। এগুলো আপনার ওয়েবসাইটে ব্যবহার করতে হলে আপনাকে টাকা দিয়ে কিনতে হবে। সাধারনত এধরনের ডোমেইনের মূল্য ৮০০-২০০০ টাকার মধ্যে হয়ে থাকে এক বছরের জন্য।

২) হোস্টিং কি ?

অনেকেই ডোমেইন কি তা জানেন কিন্তু হোস্টিং কি তা জানেন না। আপনি একটি ডোমেইন কিনলেন তাহলে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের একটি নাম কিনলেন। আপনার ওয়েবসাইট কে এমন একটা পিসি তে রাখতে হবে যেটা ২৪ ঘন্টা এবং বছরে ৩৬৫ দিন অন থাকবে।

সব সময় চালু থাকে এমন একটা পিসিতে আপনার ওয়েবসাইট রাখার সুবিধা দিয়ে থাকে  হোস্টিং কোম্পানীগুলো। হোস্টিং কোম্পানীগুলো মাসিক বা বাৎসরিক টাকার বিনিময়ে এ সার্ভিস দিয়ে থাকে। বিভিন্ন কোম্পানী বিভিন্ন ধরনের মূল্যে হস্টিং প্রভাইড করে। বাংলাদেশে আপনাকে হোস্টিং নিতে হলে বিভন্ন কোম্পানীকে বিভিন্ন ধরনের মূল্য পরিশোধ করতে হবে। তাদের পিসি থেকে নির্দিষ্ট  পরিমান জায়গা আপনাকে কিনে ব্যবহার করতে হবে। আর আপনি ওয়েবসাইটের জন্য যে জায়গাটা কিনবেন সেটা হলো হোস্টিং।

আপনি চাইলে আপনার বাসার পিসিতেও আপনার ওয়েবসাইট রাখতে পারেন কিন্তু আপনার বাসার পিসি কি ২৪ ঘন্টা ৩৬৫ দিন চালু থাকে? আপনি আপনার পিসিতে ওয়েবসাইট রাখলে আপনার কম্পিউটার   বন্ধ বা ইন্টারনেট সংযোগ না থকলে আপনার ভিজিটর আপনার ওয়েবসাইট দেখতে পারবে না। আপনি যে পিসিতে আপনার ওয়েবসাইট হোস্ট করবেন সেটা সবসময় চালু থকতে হবে। আনার সাইট হোস্ট করা পিসি চালু থাকলেই আপনার ভিজিটর আপনার ওয়েবসাইট দেখতে পাবেন।

বাংলাদেশের হোস্টিং কোম্পানী সহ বিশ্বের যে সকল হোস্টিং  কোম্পানী আছে,যেমন এআর খান হোস্ট তারা বিভন্ন ধরনের হোস্টিং বিক্রি করে। এআর খান হোস্ট বিক্রি করে থাকে শেয়ার হোস্টিং, ভিপিএস, ডেডিকেটেড সার্ভার ইত্যাদি। আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী আপনাকে হোস্টিং স্পেস কিনে নিতে পারবেন।

বর্তমান সময়ে  যারা জানে না তারা অনেকেই মনে করেন ডোমেইন হোস্টিং মনে হয় একই জিনিস । অথবা একটা কিনলে ২ টাই পাওয়া য়ায়। না মুলত ডোমেইন এক জিনিস আর হোস্টিং আরেক জিনিস। ২ টাই আপনাকে কিনতে হবে অলাদা আলাদা টাকা দিয়ে। তবে সাধারনত যারা হোস্টিং এবং ডোমেইন ২ টাই বিক্রি করে। আপনি চাইলে একই প্রভাইডারের কাছ থেকে ২ টাই কিনতে পারেন। আবার চাইলে আলাদা কোম্পানীর কাছ থেকেও কিনতে পারেন। তবে আমি বলবো আপনি ডোমেইন এবং হোস্টিং একই কোম্পানীর কাছ থেকে কিনেন তাতে আপনার মেইনটেনেন্সে অনেক সুবিধা  হবে।

আপনি চাইলে এআর খান হোস্ট  থেকে ডোমেইন এবং হোস্টিং ক্রয় করতে পারেন। এআর খান হোস্ট বাংলাদেশের ডোমেইন হোস্টিং প্রভাইডার। এআর খান হোস্ট বাংলাদেশে ভালো মানের ডোমেইন এবং হোস্টিং  সার্ভিস প্রভাইড করে থাকে এবং বাংলাদেশের বাইরের দেশেও হোস্টিং প্রভাইড করে। কিন্তু এআর খান হোস্ট সার্ভার হলো ইউ.এস.এ এর। তাই কোন রকম সার্ভির খারাপ হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

ই-কমার্স কি? কিভাবে এবং কোথা থেকে সেরা ই-কমার্স ওয়েবসাইটের জন্য সেরা ডোমেইন ও হোস্টিং কিনবেন ?

ই-কমার্স কি? কিভাবে এবং কোথা থেকে সেরা ই-কমার্স ওয়েবসাইটের জন্য সেরা ডোমেইন ও হোস্টিং কিনবেন ?

ই-কমার্স কি? কিভাবে এবং কোথা থেকে সেরা ই-কমার্স ওয়েবসাইটের জন্য সেরা ডোমেইন ও হোস্টিং কিনবেন ?

যতই দিন যাচ্ছে ততই ইন্টারনেটের ব্যাবহার বৃদ্ধি পাচ্ছে। যার ফলে সাধারন ব্যাবসা-বাণিজ্য ব্যবস্থার পাশাপাশি অনলাইন ভিত্তিক ই-বাণিজ্য বেড়েই চলেছে। বিখ্যাত ই-কমার্স কোম্পানি অ্যামাজন ও আলি এক্সপ্রেসের কথা আমরা সবাই জানি। বর্তমানে তারা একচেটিয়ে কিভাবে অনলাইন ভিত্তিক বিভিন্ন পণ্য সামগ্রী বিক্রি করছে। তারই ফলশ্রুতিতে বাংলাদেশেও এখন অনেক ই-কমার্স সাইট প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। উদাহরণস্বরূপ বলা যায় DarazAjker Deal ইত্যাদি।

আপনি যদি একজন নতুন উদ্যোক্তা হিসেবে একটি ই-কমার্স সাইট প্রতিষ্ঠিত করতে চান তাহলে প্রথমে আপনার প্রয়োজন হবে একটি ভালো মানের ডোমেইন ও হোস্টিং। কিন্তু নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য বেশ কিছু সমস্যা হয়ে দাড়ায় যখন তারা এসব বিষয়ে কোন জ্ঞান ও দক্ষতা না থাকলে। তাই আজকের আলোচনায় আমরা “ই-কমার্স কি? এবং কিভাবে আপনার ই-কমার্স ওয়েবসাইটের জন্য সেরা হোস্টিং কিনবেন ?” এ বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। তো চলুন জেনে নেওয়া যাক…

আপনি যদি ডোমেইন ও হোস্টিং সম্পর্কে জানতে চান তাহলে আমাদের আগের পোস্ট গুলো পড়ে নিতে পারেন। আশাকরি বিস্তারিত জানতে পারবেন।

আমাদের আগের পোস্ট গুলোর লিংক:

ডোমেইন কি ? এবং হোস্টিং কি ??

ডোমেইন পার্কিং কি? কিভাবে এবং কোথায় ডোমেইন পার্কিং করবেন?

 

ই-কমার্স কি? (What is E-commerce)

ই-কমার্স (E-commerce) এর ফুল ফর্ম হলো ইলেক্ট্রনিক কমার্স (Electronic Commerce)। সাধারনত, ই-কমার্স বা ই-বাণিজ্য হলো এমন একটি বাণিজ্য ক্ষেত্র যেখানে কোন ইলেকট্রনিক সিস্টেম (ইন্টারনেট বা অন্য কোন কম্পিউটার নেটওয়ার্ক) এর মাধ্যমে পণ্য বা সেবা ক্রয়/ বিক্রয় হয়ে থাকে। আধুনিক ইলেকট্রনিক কমার্স সাধারণত ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব এর মাধ্যমে বাণিজ্য কাজ পরিচালনা করে। যেমন- অনলাইন শপিং,  নিলাম, ইন্টারনেট ব্যাংকিং,  ইলেক্ট্রনিক পেমেন্ট, ইন্টারনেট ব্যাংকিং ইত্যাদি পদ্ধতি হলো ই-কমার্স বা ই-বাণিজ্য।

 

E Commerce Web Hosting-hostingreviews.com

 

যেভাবে ই-কমার্স ওয়েবসাইটের জন্য বেস্ট ডোমেইন কিনবেন

ই-কমার্স ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য প্রথম কাজ হচ্ছে আপনার পছন্দ অনুযায়ী সাইটের ভাল একটি নাম ঠিক করা।  তারপর পছন্দ অনুযায়ী নামে ডোমেইন খালি আছে কি না তা দেখা। কারণ এই নামেই আপনার প্রতিষ্ঠান পরিচিতি পাবে। নিচে সে সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

* প্রথমত আপনার ব্যবসার পণ্য বা সেবার সঙ্গে মিল রেখে ডোমেইন নাম পছন্দ করুন। অর্থাৎ ডোমেইন নামটি Brandable রাখার চেষ্টা করা

* ডোমেইন নামে কোন সিম্বল বা হাইপেন ব্যাবহার করবেন না। সেই সাথে ছোট ও সহজে মনে রাখা যায় এমন ডোমেইন নাম সিলেক্ট করুন। এতে আপনার সাইট যাঁরা দেখবেন, তাঁদের নামটা মনে রাখা সহজ হবে।

* সাধারণত .com ডোমেইন ৮৫০ টাকা থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে রেজিস্ট্রেশন করা যায় । মেয়াদ শেষে নবায়ন (রিনিউ) করতে হয়।

* রেজিস্ট্রেশন করার পর ডোমেইনের নিয়ন্ত্রণ (কন্ট্রোল প্যানেল) নিজের হাতে নেবেন। কন্ট্রোল প্যানেল দিতে পারবে না এমন সেবাদাতা বা প্রোভাইডারের কাছ থেকে ডোমেইন কেনা যাবে না। আপনি চাইলে  বিদেশি প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ডোমেইন কিনতে পারবেন।

কিভাবে সঠিক ডোমেইন নাম নির্বাচন করবেন এ বিষয়ে আরও জানতে আগের পোস্ট  টি পড়ে দেখতে পারেন। তাহলে আপনি একটা ভালো ধারণা পাবেন।

যেভাবে ই-কমার্স ওয়েবসাইটের জন্য সেরা হোস্টিং প্লান কিনবেন

একটা ই-কমার্স (E-commerce) সাইটের জন্য ডোমেইনের পরেই যেটা বেশি প্রয়োজন, সেটা হলো হোস্টিং। মূলত আপনি যে সাইটটা তৈরি করবেন, সেটার যাবতীয় ডাটা, ফাইল ও দরকারি জিনিসপত্র সার্বক্ষণিক চালু রাখার জন্য একটি স্পেস বা জায়গা প্রয়োজন। আর সেই নির্ধারিত স্পেস বা জায়গা কেই বলা হয় ওয়েবসাইটের হোস্টিং। আপনি চাইলে যেকোনো বিদেশি প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকেও ভালো মানের হোস্টিং প্যাকেজ কিনতে পারবেন। হোস্টিং বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে। যেমন: শেয়ারড হোস্টিং, ভিপিএস (ভার্চ্যুয়াল প্রাইভেট সার্ভার) হোস্টিং, ক্লাউড হোস্টিং, রিসেলার হোস্টিং, ডেডিকেটেড হোস্টিং ইত্যাদি।

এখন এগুলো হোস্টিং সার্ভিসের মধ্যে আপনি কোনটা বেছে নিবেন। সেটা হলো জানার বিষয়। নিম্নে এ বিষয়ে আলোচনা করা হলো।

শেয়ারড হোস্টিংঃ শেয়ারড হোস্টিং মানেই হচ্ছে এক পিসিতে একটা হার্ড ডিস্ক থাকবে সেই হার্ড ডিস্ক এর সব স্পেস শেয়ার করা হয় অনেকে হোস্টিং ইউজারদের মধ্যে। এ ধরনের হোস্টিং ই-কমার্স সাইটের জন্য অনুপযোগী। অধিক সংখ্যক ভিজিটর সাইটে এলেই সার্ভার ডাউন হয়ে যাওয়ার চান্স আছে। সাধারণত ১০০ থেকে ৩০০ টাকার মধ্যে (প্রতি মাসিক ভাড়া) আপনি এই হোস্টিং কিনে ব্যাবহার করতে পারবেন।

ভিপিএস হোস্টিংঃ ভিপিএস এর ফুল ফর্ম হলো ভার্চ্যুয়াল প্রাইভেট সার্ভার। যখন একটা কম্পিউটারকে  বিশেষ কোন Software বা অন্য কিছু দিয়ে ভাগ করে অনেক গুলো সার্ভার তৈরি করা হয় তখন প্রত্যেক ভাগকে এক একটা ভিপিএস বা ভার্চ্যুয়াল প্রাইভেট সার্ভার বলে। ই-কমার্স সাইটের জন্য এটি ব্যাবহার করতে পারবেন। তবে এটার ব্যবস্থাপনা একটু কষ্টসাধ্য এবং শেয়ারড হোস্টিং এর মতো সার্ভার কম ডাউন হয়। একটি ভালো ভিপিএস সার্ভারের মাসিক ভাড়া চার হাজার টাকা থেকে শুরু।

ডেডিকেটেড হোস্টিংঃ সহজ ভাষায় বললে যখন একটা কম্পিউটার পুরটাই একটা সার্ভার হিসাবে ব্যবহার করা হয় তখন এটাকে বলে ডেডিকেটেড সার্ভার। আর এই ডেডিকেটেড সার্ভার এর হোস্টিং কে আমরা বলি ডেডিকেটেড হোস্টিং । ডেডিকেটেড সার্ভার অনেক ব্যয়বহুল। যাদের ওয়েবসাইট অনেক বড় এবং বেশি নিরাপত্তার প্রয়োজন হয় তাদের জন্য এই হোস্টিং সার্ভিস টি ভালো। ই-কমার্স সাইটের জন্য ডেডিকেটেড হোস্টিংয়ের সুবিধা-অসুবিধা দুটোই আছে। ডেডিকেটেড সার্ভারের মাসিক ভাড়া কমবেশি ছয় হাজার টাকা থেকে শুরু হয়ে থাকে।

ক্লাউড হোস্টিংঃ যখন কোনো ওয়েবসাইট হোস্ট করা হয়, তখন তা একটি সার্ভারে সংর‌ক্ষিত থাকে। কিন্তু ক্লাউড হোস্টিংয়ে সাইটটি একটি সার্ভারের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে না। অর্থাৎ প্রয়োজনে ভিন্ন ভিন্ন সার্ভারের সমন্বয়ে ক্লাউড প্রযুক্তির মাধ্যমে ব্যবহারকারীর কাছে পৌঁছাতে পারে। তাই একই সময়ে বেশি মানুষ সাইটে গেলেও সার্ভার ডাউন হয় না। তাই ই-কমার্স সাইটের জন্য প্রথম পছন্দ হওয়া উচিত ক্লাউড হোস্টিং। তবে এখানে প্রধান সমস্যা হল প্রায় ৮০ শতাংশ ক্লাউড হোস্টিং প্রভাইডাররা সাধারণত ক্লাউড হোস্টিং এর নামে KVM হোস্টিং প্রদান করে। তাই ইউজার দের থেকে জেনে নিতে পারলে ভালো হয় প্রভাইডার এর সার্ভিস সম্পর্কে।

পরিশেষে,

ই-কমার্স বাংলাদেশের পরিপ্রেক্ষিতে নতুন হলেও ভবিষ্যতের কথা ভেবে নতুন উদ্যোক্তারা ধিরে ধিরে এই ই-কমার্স ব্যাবসার এর সাথে জরিত হচ্ছেন। তাই আপনি যদি একজন নতুন উদ্যোক্তা হিসেবে একটি ই-কমার্স সাইট প্রতিষ্ঠিত করতে চান তাহলে উপরোক্ত আলোচনা আপনার জন্য সহায়ক হিসেবে কাজ করবে বলে সেই আশাবাদ ব্যাক্ত রেখে এখানেই শেষ করছি।

আর লেখা গুলো পড়ে ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করতে ভুলবেন না । আপনার সুচিন্তিত মতামত আমাদের একান্ত কাম্য। তাই এই বিষয়ে আপনার যদি কোন মতামত থেকে থাকে তাহলে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানাবেন। আমরা আনন্দের সহিত আপনার মতামত গুলো পর্যালোচনা করে রেপ্লাই দেওয়ার চেষ্টা করবো।

জেনে নিন দেশীয় হোস্টিং সার্ভিস কেনার আগে  বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়!

জেনে নিন দেশীয় হোস্টিং সার্ভিস কেনার আগে  বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়!

জেনে নিন দেশীয় হোস্টিং সার্ভিস কেনার আগে  বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়!

আপনি যদি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান তাহলে সর্বপ্রথম আপনার প্রয়োজন হবে একটি ডোমেইন তারপর সেই ডোমেইনটি হোস্ট করার জন্য ভালো মানের একটি হোস্টিং সার্ভার। বাংলাদেশের হোস্টিং কোম্পানী সহ বিশ্বের যে সকল হোস্টিং  কোম্পানী আছে, যেমন এআর খান হোস্ট তারা বিভন্ন ধরনের হোস্টিং বিক্রি করে। এআর খান হোস্ট বিক্রি করে থাকে শেয়ার হোস্টিং, ভিপিএস, ডেডিকেটেড সার্ভার ইত্যাদি। আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী আপনাকে হোস্টিং স্পেস কিনে নিতে পারবেন।

পূর্বে এসব দেশীয় কোম্পানী হতে ডোমেইন হোস্টিং সার্ভিস গ্রহণের ক্ষেত্রে নানাবিধ অসুবিধা ছিলো। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে সেসব প্রতিষ্ঠানের পেশাদারি চেষ্টায় সেই অসুবিধা গুলো অনেকটা সমাধান হতে চলেছে। আধুনিক তথ্য-প্রযুক্তির যুগে র্স্মাট হোস্টিং সার্ভিস এখন সময়ের দাবী। তারই প্রেক্ষিতে বিদেশি কোম্পানির পাশাপাশি অনেক দেশীয় হোস্টিং কোম্পানি এখন সুনামের সাথে এসএসডি হোস্টিং; ভিপিএস হোস্টিং; ডেডিকেটেড হোস্টিং; ক্লাউড হোস্টিং; ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন ও এসএসএল সার্টিফিকেট সার্ভিস প্রদান করে চলেছে। যেমন এআর খান হোস্ট তারা বিভন্ন ধরনের হোস্টিং বিক্রি করে। এআর খান হোস্ট বিক্রি করে থাকে শেয়ার হোস্টিং, ভিপিএস, ডেডিকেটেড সার্ভার ইত্যাদি। আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী আপনাকে হোস্টিং স্পেস কিনে নিতে পারবেন।যেমন এআর খান হোস্ট তারা বিভন্ন ধরনের হোস্টিং বিক্রি করে। এআর খান হোস্ট বিক্রি করে থাকে শেয়ার হোস্টিং, ভিপিএস, ডেডিকেটেড সার্ভার ইত্যাদি। আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী আপনাকে হোস্টিং স্পেস কিনে নিতে পারবেন।

এছাড়া প্রতিযোগিতামূলক বাজারে নিজেদের আধিপত্য বজায় রাখতে হোস্টিং কোম্পানীগুলো বিভিন্ন উপলক্ষ্যে সামনে রেখে বিভিন্ন ধরনের অফার দিয়ে থাকে। আবার এর মধ্যে অনেক হোস্টিং কোম্পানি রয়েছে যারা কিনা হোস্টিং প্যাকেজ কিনার আগে নিজেদেরকে সেরা দাবী করলেও পরবর্তীতে দেখা যায় তাদের সার্ভিস তুলনামূলক ভাবে অনেক খারাপ। বিশেষ করে ব্যান্ডউইথ, আপটাইম, লোডিং স্পিড, কাস্টমার সাপোর্ট ইত্যাদি বিষয় গুলোর ক্ষেত্রে সর্বদা সমস্যা লেগেই থাকে। তাই এসব সুবিধা গ্রহণের ক্ষেত্রে হোস্টিং কোম্পানীর সার্ভিসের মান যাচাই বাছাই না করে আকর্ষণীয় বিজ্ঞাপন দেখে বিভ্রান্ত হওয়ার কোনো অবকাশ নেই।  তাই আজকের আলোচনায় আমরা “হোস্টিং সার্ভিস গ্রহণের আগে যেসব বিষয় গুলো জেনে একটি ভালো মানের হোস্টিং প্যাকেজ কিনা উচিত” সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। তো চলুন জেনে নেওয়া যাক–

 

best web hosting in bangladesh-hostingreviews.com

* প্রথমত, হোস্টিং সার্ভিস প্রদানের ব্যাপারে কোম্পানীর সুনাম আছে কিনা? প্রয়োজনে তাদের রিভিউস চেক করবেন।

* পিওর এসএসডি হোস্টিং অন্যান্য নরমাল হোর্স্টিং থেকে ২০ গুন বেশী গতিসম্পন্ন। বর্তমানে পিওর এসএসডি ছাড়া হোস্টিং নেয়া ঠিক নয়। তাই জেনে নিন হোস্টিং কোম্পানি সুপার ফাস্ট পিউর এসএসডি স্পেস দিচ্ছে কিনা?

* হোস্টিং প্যাকেজ নেওয়ার পর, হোস্টিং কন্ট্রোল আপনার হাতে থাকবে কিনা?

* একটি ওয়েবসাইটের লোডিং স্পিড ঠিক রাখার ক্ষেত্রে ৯৯.৯৯ % সার্ভার আপটাইম অনেক গুরুত্বপূর্ণ। তাই সর্বোচ্চ আপটাইম থাকবে কিনা?

* হোস্টিং সার্ভারে ওয়েব বেসড ইজি ফাইল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম আছে কিনা?

* হোস্টিং কোম্পানির সার্ভার আপগ্রেড অপশনস আছে কিনা? এবং ওর্য়াডপ্রেস ও ই-কর্মাস স্টোর  অপটিমাইজড হবে কিনা?

* ডাটা ব্যাকআপ অ্যান্ড ইজি রিস্টোরেশন অপশন আছে কিনা?

* আনলিমিটেড ব্যান্ডউইথ, বিজিনেস ইমেইল, সাবডোমেইন সুবিধা আছে কিনা?

* প্রয়োজনে যেকোনো বিষয়ে সময়মত (২৪/৭ ফ্রেন্ডলি কাস্টমার সাপোর্ট) রিপ্লাই দেয় কিনা? এছাড়া ফোন; ইমেইল; কিংবা ওয়েবচ্যাট সিস্টেমের মাধ্যমে কোন ডেডিকেটেড সার্পোট সংযুক্ত আছে কিনা?

* 1 Click অটো অ্যাপস ইন্সটলার আছে কিনা?

* ফ্রী ওয়েব সাইট ট্রান্সফার আছে কিনা? নাকি নির্ধারিত চার্জ দিতে হবে?

* কোন হিডেন চার্জ এবং সেটআপ ফী আছে কিনা?

* কোম্পানীর পেমেন্ট সিস্টেম অনলাইনে ভিত্তিক কিনা? সেই সাথে প্রথম বছর হোস্টিং ফি কম নিয়ে দ্বিতীয় বছর রিনিউ করার সময় দ্বিগুন নেবে কিনা?

* রিনিউ করার জন্য কতদিন আগে নোটিশ করবে? আবার সময়মত রিনিউ করতে না পারলে কতদিনের সুযোগ দেবে?

* মানি ব্যাক গ্যারান্টি ও ফ্রি ট্রায়াল পিরিয়ড সুবিধা আছে কিনা?

পরিশেষে

উপরে বর্ণিত টেকনিক্যাল বিষয় গুলো ছাড়াও আপনার ব্যবসায়ের ধরণ ও সাইটের বৈশিষ্ট্য অনুসারে আরও যেসব সুযোগ সুবিধা প্রয়োজন আপনি চাইলে সেগুলো নোট ডাউন করে নিতে পারেন। যাতে করে পরবর্তীতে এটা নিয়ে আপনাকে আর কোনো ঝামেলায় পড়তে না হয়।

এছাড়া বেশির ভাগ হোস্টিং কোম্পানিরই নিজস্ব কল সেন্টার ও সাপোর্ট টিম রয়েছে। আপনি চাইলে  কোম্পানির ওয়েব সাইট ভিজিট এর পাশাপাশি ফোন করেও তাদের সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

পাশাপাশি লেখা গুলো পড়ে ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করতে ভুলবেন না। আপনার সুচিন্তিত মতামত আমাদের একান্ত কাম্য। তাই এই বিষয়ে আপনার যদি কোন মতামত থেকে থাকে তাহলে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানাবেন। আমরা আনন্দের সহিত আপনার মতামত গুলো পর্যালোচনা করে রেপ্লাই দেওয়ার চেষ্টা করবো।

 

জেনে নিন, ডোমেইন এবং হোস্টিং কিভাবে কিনবেন তার এ টু জেড গাইড

জেনে নিন, ডোমেইন এবং হোস্টিং কিভাবে কিনবেন তার এ টু জেড গাইড

জেনে নিন, ডোমেইন এবং হোস্টিং কিভাবে কিনবেন তার এ টু জেড গাইড

বর্তমান ডিজিটাল এই যুগে হরহামেশাই নতুন নতুন ওয়েবসাইট বানানোর প্রয়োজন হচ্ছে। আর একটি ওয়েবসাইটের অপরিহার্য্য অংশ হল এর ডোমেইন এবং হোস্টিং ।

হ্যা, একটি ডোমেইন এবং হোস্টিং ছাড়া কখনই একটি ওয়েবসাইট খোলা সম্ভব না। তাই একটি সাইট ওপেনিং এর সময় সবথেকে আগে যে জিনিসটি মাথায় আসে সেটি হল তার ডোমেইন এবং হোস্টিং। তো আপনি কি জানেন যে একটি ডোমেইন এবং হোস্টিং কিভাবে কিনতে হয়?

কোন সমস্য নেই যদি আপনি তা না জেনে থাকেন কারন আমি এই পোস্টে আপনাকে ডোমেইন এবং হোস্টিং কেনার উপায় বিস্তারিতভাবে বলে দেব।

তাহলে চলুন জেনে নেই যে কিভাবে এই কাজটি করতে হয়!

কিভাবে ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনবেন?

এখন আমি ধাপে ধাপে একটি ডোমেইন এবং হোস্টিং কেনার প্রক্রিয়া দেখাবো। আপনি চাইলে নিচের এই ভিডিওটি দেখে নিতে পারেন।

 

তবে প্রথমেই বলে নেই যে ডোমেইন এবং হোস্টিং কিন্তু আপনি  টি উপায়ে কিনতে পারেন আর তা হলঃ

১। শুধুমাত্র ডোমেইন কেনা

২। কোন হোস্টিং প্যাকের সাথে ডোমেইন কেনা

 

তো এ  ব্যাপারটি একটু ক্লিয়ার করে বলি। আসলে আপনি ডোমেইন এবং হোস্টিং কেন কিনছেন? একটি ওয়েবসাইট খোলার জন্য তাই তো!  তো একটি ওয়েবসাইট খুলতে একটি হোস্টিং প্যাক ও কেনার প্রয়োজন হয় আর তাই আপনি চাইলে আপনার ডোমেইন এবং হোস্টিংটি একটি হোস্টিং প্যাক কেনার সময়ই কিনতে পারেন, আবার শুধুমাত্র একটি ডোমেইন এবং হোস্টিং ও আলাদাভাবে কিনতে পারেন যদি এখনই সেটা হোস্টিং না করতে চান।

যাই হোক আমি উভয় পদ্ধতিই এই পোস্টে দেখাব।

জানুন! বিভিন্ন এক্সটেনশনের ডোমেইনের দাম

 

উপায় ১। শুধুমাত্র ডোমেইন কেনা

তাহলে প্রথমে আমি শুধুমাত্র ডোমেইন কেনার উপায়টি এখানে দেখাচ্ছি।

 

ধাপ ১। আপনার ডোমেইন পছন্দ করুন

আপনার ডোমেইন এবং হোস্টিংটি পছন্দ করুন। হ্যা, যেহেতু ডোমেইন হল একটি ইউনিক নেম, তাই আপনি শুধুমাত্র ওই ডোমেইন কিনতে পারবেন যা আপনার আগে অন্য কেউ রেজিস্ট্রেশন করে ফেলেনি। তাই প্রথমে আপনি আপনার সাইটের জন্য একটি সুন্দর নাম পছন্দ করুন।

ধাপ ২। একটি ডোমেইন এবং হোস্টিং রেজিস্ট্রার কম্পানির সাইটে ভিজিট করুন

আপনার ডোমেইন এবং হোস্টিং এর নামটি পছন্দ করা হয়ে গেলে এবার এখানে ক্লিক করে AR Khan Host এ ভিজিট করুন। আমি এখানে AR Khan Host কে রেকমেন্ড করছি কারন তারা হল ওয়ার্ল্ড ক্লাস ডোমেইন এবং হোস্টিং রেজিস্ট্রার।

কিন্তু ভুলেও লোকাল কারো কাছ থেকে এই যেমন লোকাল কোন কম্পানি বা বড় ভাইকে দিয়ে আপনার ডোমেইন এবং হোস্টিংটি কেনাবেন না

কারন আপনাকে আপনার নিজস্ব একাউন্টেই ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনতে হবে, তাহলে আপনি সর্বোচ্চ নিরাপত্তা পাবেন। এমন ঘটনা অহরহ ঘটছে যে লোকাল কারো কাছ থেকে ডোমেইন কিনলেন, কিন্তু পরের বছর আর রিনিউ করতে পারলেন না কারন আপনি আপনার একাউন্টে আপনার ডোমেইনটি কেনেননি।

তাই এই ব্যাপারটায় সচেতন হোন

ধাপ ৩। আপনার ডোমেইনটি সার্চ করুন

AR Khan Host এ ভিজিট করলে আপনি একটি ওয়েব পেইজ পাবেন যেখানে নিচের মত একটি বক্স দেখতে পাচ্ছেনঃ

এই বক্সে আপনার পছন্দের ডোমেইন নেমটি বসিয়ে দিন আর এরপর .com এক্সটেনশনটি ব্যবহার করুন কারন  .com হল সবথেকে জনপ্রিয় এক্সটেনশন।  এরপর এর পাশে থাকা সার্চ বাটনটিতে ক্লিক করুন।

 আপনার ডোমেইন টি যদি এভেইলেবল থাকে তবে তার নিচের  দিকে celect domain বাটন দেখতে পাবেন। celect domain বাাটনে ক্লীক করুন।

ধাপ ৪। আপনি যে এক্সটেনশনটি নিতে চান সেটা শপিং কার্ট যোগ করুন

এবার আপনি ওই শপিং কার্ট বাটনে ক্লিক করুন ও দেখবেন যে ডানদিকে থাকা  আপনার কার্টে তা যুক্ত হয়ে গিয়েছেঃ

 ধাপ ৫। View Cart বাটনে ক্লিক করুন

এবার নিচে দেখবেন যে View Cart নামে একটি বাটন আছে।

ধাপ ৭। ডোমেইনের বিল পরিশোধ করুন

এবার আপনার ডোমেইনের সমস্ত ইনফরমেশন আবারও ভালমত চেক করে নিন যে কোথাও কোন ভুল আছে কিনা।

সবকিছু নিরভুল থাকলে আপনাকে এবার আপনার ডোমেইন বিল পরিশোধ করতে হবে। এজন্য আপনাকে Confirm Order বাটনটিতে ক্লিক করতে হবেঃ  এরপর আপনার সকল ইনফরমেশন দিয়ে ডোমেইন  বিল পরিশোধ করুন।

বিল পরিশোধের পর আপনি আপনার ইমেইলে কয়েকটি ইমেইল পাবেন যেখানে একটি ডোমেইন ভেরিফিকেশন ইমেইল আছে। ওই ইমেইলে প্রবেশ করে আপনার ডোমেইন  ভেরিফাই করে নিন।

 

ব্যস! আপনার ডোমেইন কেনা হয়ে গিয়েছে আপনার নামে।

 

এবার আমি দেখাবো কিভাবে একটি হোস্টিং প্যাক এর সাথে আপনি আপনার ডোমেইন এবং হোস্টিংটি কিনতে পারেন।

জেনে রাখা ভাল! একটি ওয়েবসাইট তৈরির খরচ কত যানতে কল করুন-01904099900

উপায় ২। কোন হোস্টিং প্যাকের সাথে ডোমেইন কেনা

আপনি যে এক্সটেনশনটি নিতে চান সেটা  এবং হোস্টিং এর যে প্যাকেজটা নিতে চান সেটা শপিং কার্ট যোগ করুন

এবার আপনি ওই শপিং কার্ট বাটনে ক্লিক করুন ও দেখবেন যে ডানদিকে থাকা  আপনার কার্টে তা যুক্ত হয়ে গিয়েছেঃ

 ধাপ ৫। View Cart বাটনে ক্লিক করুন 

এবার নিচে দেখবেন যে View Cart নামে একটি বাটন আছে।

 

 বিল পরিশোধ করুন

এবার আপনার ডোমেইন এবং হোস্টিং এর  সমস্ত ইনফরমেশন আবারও ভালমত চেক করে নিন যে কোথাও কোন ভুল আছে কিনা।

সবকিছু নিরভুল থাকলে আপনাকে এবার আপনার ডোমেইন এবং হোস্টিংটির বিল পরিশোধ করতে হবে। এজন্য আপনাকে Confirm Order বাটনটিতে ক্লিক করতে হবেঃ  এরপর আপনার সকল ইনফরমেশন দিয়ে ডোমেইন  বিল পরিশোধ করুন।

বিল পরিশোধের পর আপনি আপনার ইমেইলে কয়েকটি ইমেইল পাবেন যেখানে একটি ডোমেইন ভেরিফিকেশন ইমেইল আছে। ওই ইমেইলে প্রবেশ করে আপনার ডোমেইন  ভেরিফাই করে নিন।

ব্যস! আপনার ডোমেইন কেনা হয়ে গিয়েছে আপনার নামে।

ভালো থাকবেন ও পরের গাইডে আবারো দেখা হবে।